Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সাধারণ তথ্য

 

 

বন্দীদের সাথে দেখা সাক্ষাতের নিয়মাবলীঃ

 

১। ডিটেন্যু ও নিরাপদ হেফাজতী বন্দীদের সাথে দেখা করতে হলে সংশ্লিষ্ট জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট ও আদালতের         

     অনুমতি প্রয়োজন ।

২। দেখা সাক্ষাৎ সর্বোচ্চ ৩০ (ত্রিশ) মিনিটের মধ্যে শেষ করতে হবে ।

৩। বন্দীদের সাথে দেখা সাক্ষাৎ করার জন্য কোন প্রকার টাকা পয়সা লেনদেন নিষিদ্ধ ।

৪। মোবাইল বা অন্য কোন নিষিদ্ধ দ্রব্য নিয়ে সাক্ষাৎ কক্ষে প্রবেশ করা যাবে না ।

৫। সাক্ষাৎ প্রার্থীদের সহজ ও ন্যায্য মূল্যে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রবাদী সরবরাহের লক্ষে সাক্ষাৎ কক্ষের সামনে

     ক্যান্টিন রয়েছে ।

৬। হাজতী বন্দীর সাথে ১৫ দিন অন্তর এবং কয়েদী বন্দীর সাথে ৩০ দিন অন্তর এক বার দেখা করা যাবে ।

 

পিসির টাকা জমা দেওয়ার নিয়মাবলীঃ

 

১। এখানে পিসির টাকা জমা নেওয়া হয় ।

২&। পিসির টাকা জমা দেওয়ার জন্য কোন আবেদনের প্রয়োজন হয় না ।

৩। পিসির টাকা গ্রহণের নির্ধারিত স্থানে টাকা জমা করুন, অন্য কারো কাছে টাকা  জমা দিবেন না ।

৪। পিসিরি টাকা জমা দানের ব্যাপারে কোন বাড়তি টাকার প্রয়োজন হয় না ।

৫। আপনার বন্দীর পিসির নাম্বার জেনে সঠিক নাম্বারে টাকা জমা দিন ।

৬। তবে আপনি মানি অর্ডারের মাধ্যমে টাকা জমা দিতে পারবেন ।

৭। পিসিতে জমাকৃত টাকা দ্বারা বন্দীগণ কারাভ্যান্তরের ক্যান্টিন থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ও খাদ্যদ্রব্য    

     সুলভ মূল্যে ক্রয় করতে পারেন ।

 

 

জামিন সংক্রান্ত নিয়মাবলীঃ

 

১। জামিনে মুক্তিযোগ্য বন্দীদের তালিকা নোর্টিশ বোর্ডে টাঙ্গানো আছে ।

২। জামিননামা কারাগারে পৌছানোর ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া সত্ত্বেও নোটিশ বোর্ডে টাঙ্গানো তালিকায় আপনার

     বন্দীর নামটি খুজে দেখুন ।

৩। যে সব বন্দীর জামিননামা ভুল আছে তারা অদ্য মুক্তি যাবে না । তাদের আগামীকাল মুক্তি পাবার সম্ভাবনা   

     আছে ।

 

ওকালত নামা স্বাক্ষরের নিয়মাবলীঃ

 

১। ওকালকতনামা নির্দিষ্ট বাক্রে্ জমা দিন ।

২। বন্দীর পূর্ণ ঠিকানা এবং মামলা বৃত্তান্ত সঠিক ভাবে লিখে ওকালতনামা বাক্রে্ রাখুন ।

৩। ১ ঘন্টা অন্তর বাক্র্ খুলে বন্দীর স্বাক্ষরান্তে আইনজীবি/ আত্নীয় স্বজনের নিকট হস্তান্তর কার হয় ।

৪। ওকালতানামা স্বাক্ষরের জন্য কোন প্রকার টাকা পয়সা লেনদেন করবেন না ।

 

চলমান পাতা-২,

 

‘‘পাতা-২’’

 

বন্দীদের নিকট মালামাল সরবরাহের নিয়মাবলী ঃ

 

১। আপনার বন্দীর নিকট সরবরাহের নিমিত্তে মালামাল তালিকায় লিপিবদ্ধ করে কর্তব্যরত ইউনির্ফমধারী নাম ও

    নাম্বার যুক্ত কারারক্ষীর নিকট জমা দিন ।

২। আপনার কর্তৃক দেয় মালামাল যত্নের সাথে আপনার বন্দীর নিকট পৌছানোর ব্যবস্থা করা হবে ।

৩। মালামাল বন্দীর নিকট পৌছানোর জন্য কোন প্রকার টাকার প্রয়োজন হয় না ।

৪। মালামালের ভিতর কোন প্রকার অবৈধ দ্রব্য সরবরাহ করার চেষ্টা করবেন না । মালামাল যাচাই করে বন্দীর

     নিকট হস্তান্তর করা হয়ে থাকে । জমাদানকালে যদি অবৈধ মালামালের অস্তিত্ব সনাক্ত কারা যায় তবে   

     সরবরাহকারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।

 

বিশ্রামাগারের নিয়মাবলীঃ

 

১। বিশ্রামাগারে পর্যাপ্ত বসার ব্যবস্থা আছে ।

২। বিশ্রামাগারে বৈদ্যুতিক পাখা, পানীয় জল এবং টয়লেটের সু-ব্যবস্থা রয়েছে ।

৩। অফিসে কোন প্রয়োজনীয় সংবাদ পৌছাতে হলে অনুসন্ধানের সাথে যোগাযোগ করুন ।